Md. Asadullah Galib – মোঃ আসাদুল্লাহ গালিব সম্পর্কে

Asadullah Galib

আমি আসাদুল্লাহ গালিব, জন্ম ও বেড়ে ওঠা পাবনা জেলার, সাথিয়া থানার অন্তর্গত কাশিনাথপু্র ইউনিয়নে। খুব বেশী মিশুক মানুষ বা এক্সটোভার্ট না হওয়ায় স্কুলের গুটি কয়েক ফ্রেন্ড, কয়েকটি এলাকার বাইরে তেমন কিছু চিনি না।

এসএসসি পাশ করেছি, কাশিনাথপু্র আব্দুল লতিফ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ২০১২ সালে। বিজ্ঞান বিভাগ এর ছাত্র ছিলাম তবে লেখা-পড়ায় তেমন মনযোগী ছিলাম না। বন্ধুদের সীমাহীন সহয়তা আর ভাগ্যর উপর ভর করে এসএসসি পরিক্ষায় ভালো ফলাফল করতে সক্ষম হয়েছিলাম।

ঢাকার নটরডেম কলেজে সাইন্স-৪ এ পড়া লেখা করার সৌভাগ্য হয়েছিল। ১১৪৪০৭০ এই রোলটি আমার চিন্তা ভাবনার আমুল পরিবর্তন আনতে মুল ভুমিকা পালন করেছে। কলেজ লাইফ এ পুরোটাই ছিল ঢাকাতে মানিয়ে নেয়ার স্ট্রাগল। এর পরের নটরডেম নাট্যদলে কাজ করার অভিজ্ঞতা ছিল অন্যরকম পাওয়া।

২০১৪ সালে এইচএসসি পাশ করার পরের সময়টা ছিল মারাত্বক ব্যার্থতার সময়। জীবনের বাকে বাকে কতই না নাটকীয় ঘটনা ঘটে, কতই না আপস-ডাউন হয় সেটা হয়ত এই সময়ে না আসলে বুঝতে পারতাম না।

মানুষ ব্যার্থ হলে শূন্য থেকে শুরু করে কিন্তু আমার শুরু করতে হয়েছিল মাইনাস ১০০ থেকে। আমার টার্গেট ছিল শুন্যতে আসা। তার পরে না আবার আগিয়ে যাওয়ার চিন্তা করা যাবে।

২০১৬ সালে ঢাকার একটি বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞান এবং প্রকৌশল বিভাগে বিএসই অনার্স কোর্স এ ভর্তী হই যেটা শেষ করতে সময় লাগে নির্ধারিত সময়ের থেকেও ১ বছর বেশি।

ভার্সিটি লাইফে বেশির ভাগ শিক্ষার্থী রেজাল্ট দেখার সময়ে শুরুতে দেখে কোন সাবজেক্ট এ হায়েস্ট গ্রেড ছুটে গেছে কি না। আর আমি দেখতাম কোন সাবজেক্ট এ ফেল আসছে কি না।

যে কোন সেমিস্টার এ সব সাবজেক্ট পাশ করা ছিল আমার কাছে স্বপ্নের মত। হাতে গোনা কয়েকটি সেমিস্টার ছিল যেখানে আমি সব সাবজেক্ট এ পাশ করেছিলাম।

আমার বন্ধুরা ১ বছর আগে খুব ভালো রেজাল্ট নিয়ে বের হয়ে যায়। বেশীর ভাগ এর রেজাল্ট ছিল ৩.৫০ থেকে ৪.০০ । কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, আমি দেখতাম ২-১ জন ছাড়া সবাই বেকার!

কি লাভ এই ৩.৫০ বা .৩.৯০ দিয়ে যদি সেটা দিয়ে একটা চাকরিই না হয়?

আমার সব কোর্স শেষ করার পর রেজাল্ট ছিল ৩ এর একটু উপরে। কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, পাশ করার আগেই ঢাকার একটা সফটওয়্যার কোম্পানিতে চাকরি হয়ে যায়।

পেশায় আমি কম্পিউটার বিজ্ঞান এর শিক্ষার্থী আর নেশায় আমি কম্পিউটার বিজ্ঞানি। কম্পিউটার বিজ্ঞানের ইমার্জিং ব্রাঞ্চ মেশিন লার্নিং, ডিপ লার্নিং, বায়ো-ইনফর্মেটিক্স, ডেটা সাইন্স নিয়ে কাজ করে থাকি।

এর বাইরে, কর্ম জীবনে ২০১৫-২০১৮ সালে, টানা কাজ করেছি ফ্রিল্যান্সার হিসাবে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস এবং মার্কেট এর বাইরের ক্লায়েন্ট এর সাথে। ২০১৮ তে কেপি-সফটয়্যার সলুশন্স এ এন্ড্রয়েট ডেভেলপার হিসাবে ইন্টার্নশিপ করার মাধ্যমে লোকাল জব শুরু করি।

মার্কেটপ্লেস এ কাজ না করলেও, বিভিন্ন প্রজেক্ট এর সাথে জরিত বিশেষ করে ট্রেইনার হিসাবে প্রাইম আইটি তে ছিলাম দীর্ঘ দিন। এই মুহুর্তে টেক এলার্ট ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং সংক্রান্ত কন্টেন্টট বানিয়ে থাকি।

২০১৯ এর পুরো সময়, সতেজ লাইফ নামের একটি এগ্রি ফার্মের চিফ টেকনোলজি অফিসার হিসাবে কাজ করেছি।

নিজের অর্জিত জ্ঞান, অভিজ্ঞতা, কল্পনার সব কিছু লেখার জন্যই এই ব্লগ। লিখতে যতদিন ভালো লাগবে লিখন, না লাগলে লেখা অফ করে দিব। ভিডিও কনটেন্ট বানানোর উদ্যেশ্য একই, ভালো লাগে তাই বানাই, ভালো না লাগলে বানাবো না।

আমার সাথে গল্প করে তেমন মজা পাওয়ার কথা নয় কারন আমি সোস্যালি লেস কমনসেন্স এর একজন মানুষ। এর পরও যদি যোগাযোগ করতে চান, তাহলে আমার ফেজবুকের পেজ এ নক দিতে পারেন।

গুগলে পাওয়া যায়, এ রকম কোন প্রশ্ন করলে উত্তর পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

Asadullah Galib
মোঃ আসাদুল্লাহ গালিব

ব্যাক্তিগত ভাবে আমি একজন টেক উদ্যোক্তা এবং কয়েকটি স্টার্টয়াপ প্রতিষ্ঠান এর সাথে জরিত। তার মধ্য কয়েকটি ইতিমধ্য জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

গালিব নোটসঃ

মুলত বিলগেটস এর ব্লগের নাম গেটস নোটস থেকে অনুপ্রানিত হয়ে, গালিব নোটস এর জন্ম। প্রথমে ইউটিউব চ্যানেল এবং পরে ব্লগ শুরু করেছি। ইউটিউব বা ব্লগ উভয় যায়গা মুলত আমার অভিজ্ঞতা, ক্যারিয়ার নিয়ে, সিএসই নিয়ে বা মেশিন লার্নিং নিয়ে কনটেন্ট বানাই। উল্লেখ্য, কিছু কনটেন্ট এক্সটার্নাল মানুষের লেখা এবং যথাযত ক্রেডিট দেয়া হয়েছে।

গালিব নোটস ইউটিউব চ্যানেল ইন্ট্রো

টেক এলার্টঃ

টেক এলার্ট ইউটিউব এবং টেক এলার্ট বাংলা ব্লগ হচ্ছে বাংলাদেশি টেক রিসোর্স প্রভাইডার। এই ব্লগ/ইউটিউবের মাধ্যমে আমি এবং আমার টিম মিলে, মুলত টেকনোলজি, রিসোর্স, অনলাইন ইনকাম, ক্যারিয়ার বিল্ড-আপ এর ব্যাপারে টিউটোরিয়াল প্রভাইড করে থাকি।

ক্যারিয়ার পোর্টালঃ

ডিবাগঃ ডিবাগ ডট কো তে আমি এঞ্জেল ইনভেস্টর শেয়ার হোল্ডার হিসাবে আছি। ডিবাগ হচ্ছে বাংলাদেশি প্রডাক্ট বেইজড সফটওয়্যার কোম্পানি।

অলজো (Ollzo.com): বাংলাদেশী যায়ান্ট প্রডাক্ট বেইজড সফটওয়্যার কোম্পানি অলজো তে আছি এঞ্জেল ইনভেস্টর হিসাবে।

ইকিনি ডট কমঃ

বাংলাদেশী নতুন ইকমার্স সাইট হচ্ছে ইকিনি ডট কমইকিনির পন্য মানেই বাজারের সেরা কোয়ালিটির পন্য!

ইকিনি ডট কম (ekenee.com) আপনাদের দরজায়। দ্রুততম সময়ের মধ্যে কাস্টমারদের প্রোডাক্ট পৌছে দেয়া, খাটি পণ্য সরবরাহের উদ্দেশ্যে নিয়ে ইকিনি ডট কম (ekenee.com) এর যাত্রা শুরু।

ইকিনির খাদ্য পন্য গুলো মেনুয়ালি সংগ্রহ করা হয় এবং কঠোর ভাবে মান নিয়ন্ত্রন করা হয়। আমরা সে সব পন্য বিক্রি করে থাকি যেগুলো আমরা নিজেরাই ব্যাবহার করে থাকি।

এর বাইরে আমার ইচ্ছা আছে, ভবিশ্বতে একটি রিসার্চ ল্যাব এবং রিসার্চ বেইজড বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার। আমি মনে করি, কেবল মাত্র রিসার্চ এ পারে, একটি জাতিকে এগিয়ে নিতে। আর একটি রিসার্চ বেইজড বিশ্ববিদ্যালয় পারে আমাদের দেশ কে আমুল পরিবর্তন করতে।

আমাকে সোস্যাল মিডিয়াতে ফলো করতে চাইলেঃ

Close