আমরা ছোটোবেলা থেকে জেনে থাকি সময় একবার চলে গেলে আর ফিরে আসে না। করোনা মহামারী তে এটা আরো স্পষ্ট। জীবনে বেড়ে ওঠার প্রতিটি  ক্ষেত্রে  আমরা এটা উপলব্ধি করি। আর তাই হয়ত একটা প্রবাদই আছে, “সময় ও  স্রোত কারো জন্য অপেক্ষা করে না”

“Time and tide wait for none”.

আমরা যদি একটু ভালোভাবে এখনকার বিষয়টি ভেবে দেখি তাহলে দেখা যাবে উপরের লেখাটুকু পড়তে আপনার অথবা লিখতে যতটুকু সময় লেগেছে সে সময়টা আমি অথবা আপনি আর কোনোভাবেই  ফিরে পাবো না। এই সময়টুকু কিন্তু আমাদের থেকে সারাজীবনপর জন্য হারিয়ে গেছে। কিন্তু প্রতিটি দিনে শেষে কি কেউ আমারা এটা উপলব্ধি করি?

একটা সময় পরে হয়তো আমরা উপলব্ধি করি, যদি সময়টা সঠিকভাবে কাজে লাগাতে পারতাম তাহলে হয়ত আমার জীবনটা আরো সুন্দর হতে পারতো। কিন্তু সত্য কথাটি হলো,যখন আপনি সময়ের মূল্য বুঝতে শিখবেন তখন হয়ত অনেক দেরি হয়ে গেছে এবং ইন দ্যাট টইম ইউ হ্যাভ নাথিং টু ডু।

যে ১৪টি কারনে প্রোগ্রামার মেয়ের সাথে ডেট করা উচিৎ!

তাই সময়ের মূল্য আমাদের জীবনে একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে সক্ষম! মহামারী করোনা ভাইরাস এর জন্য আমাদের অনেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। অনেকের অফিস। কিন্তু বাসায় বসে অনেক ভাবে সময়ের সঠিক ব্যাবহার করা যায়।

কোভিড১৯ আউটব্রেক বা করোনা মহামারী এর পর পরিস্থিটি ঠিক হতে অনেক সময় লাগবে। আর এ সময়ে আমাদের কে কঠিন পরিক্ষা দিতে হবে টিকে থাকার জন্য। তাই আমাদের এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে।

০১. বুঝতে শিখো তুমি কি করতে পছন্দ করোঃ

সময় নষ্ট না করে তাড়াতাড়ি বুঝতে  শিখো তোমার ভালো লাগার দিকটি ঠিক কি?  আমরা অনেক সময় অনেক কিছু করতে বাধ্য হই আবার অনেক কিছু আমাদের পছন্দের বাইরে করে থাকি কিন্তু আমাদের  এমন কিছু করা উচিৎ যে কাজ করতে আমরা ইন্টারেস্ট পাবো।

এখন অনেকের মাথায় প্রশ্ন আসতে পারে ইন্টারেস্ট এর সাথে সময়ের সম্পর্কটি ঠিক কি?

তাদেরকে বলছি – তুমি নিজেই একটু ভেবে দেখ তুমি যে কাজে / যে জিনিসে ইন্টারেস্টেড না সেটা যদি তোমাকে কেউ করতে বলে তাহলে সেই কাজটার প্রতি তোমার একটা ভালো না লাগা কাজ করবে এবং যেটাতে ভালো না লাগা কাজ করবে সেই কাজটা করতে সময়ও বেশি লাগবে।

যে ১৫টি কারনে আইইউবিএটি সিএসই ডিপার্টমেন্ট এ ভর্তি হওয়া উচিৎ

কিন্তু কোনো কাজের প্রতি তোমার যদে তোমার ইন্টারেস্ট থাকে তাহলে তোমার কাজের গতি কয়েকগুন বেড়ে যাবে এবং কাজটা শেষ করতে অনেক কম সময় লাগবে এতে করে অনেক সময় বেঁচে যাবে

০২. ডু ইট নাউঃ

আমরা সবাই আমাদের জীবনের এই ভূলটি করে থাকি। বেশিরভাগ কাজ আমরা পরে করবো বলে ফেলে রাখি,আমাদের কাছে মনে হয় হইত কাজটি পরে করলে হবে। অথবা কোনো কাজ অর্ধেক করে বাকিটা ফেলে রাখি পরে করবো বলে। এমনভাবে একটি একটি করে কাজ ফেলে রাখতে রাখন একটা সময় দেখা যায়,  আমাদের  উপর কাজের বোঝা অনেক বেড়ে যায় এবং ঠিক সেই সময় আমাদের মনে হয় সময় মতো কাজটি যদি করে ফেলতাম অথবা সময়টা যদি আবার ফিরে আসতো তাহলে হয়তো আমরা কাজটা অনেক সুন্দর ভাবে গুছিয়ে করতে পারতাম ।

But unfortunately, this will be never happened at any cost.

 তাই যা করার তা এখনই করা উচিৎ কাজটি পরের জন্য ফেলে না রেখে।

০৩. নোটবুক তৈরি করোঃ

অনেক সময় আমরা অনেক কিছু করতে চেয়ে আবার ভূলে যায় এবং সময় গেলে সেই কাজের কথা হয়ত মনে পরে আর এই ভূলের কারনেই আমরা আমাদের জীবন থেকে অনেক মূল্যবান সময় হারিয়ে ফেলি অনেক সময় এই কারনেই আমাদের জীবনে আমাদের অনেক পস্তাতে হয়।

কিন্তু আমরা যদি সবসময় নোটবুক এ সময় থাকতেই সব লিখে রাখি তাহলে  এইটা আমাদের সময় বাঁচাতে অনেক কাজে আসবে।

০৪. সময়- সাশ্রয়ী অভ্যাস গড়ে তোলোঃ

ব্রিটিশ কবি জন ড্রাইডেন বলেছিলেন,

“We first make our habits and than habits make us”.

 কথাটা ঠিক কতখানি সত্য সেটা আমরা আমাদের জীবন দিয়ে বুঝতে পারি।

“ছোটবেলাতে বাবা বলতেন “- মানুষ অভ্যাসের দাস, তাই মানুষ নিজের  অভ্যাস নিজে যেমন গড়ে নিতে এবং পরিবর্তন করতে সক্ষম, তেমনভাবে অভ্যাসই ঠিক করে দেয় মানুষ কিভাবে গড়ে উঠবে। আমাদের অভ্যাসগুলোই আমরা কেমন সেটা নির্ধারন করে।

আর এই অভ্যাসগুলো যত সময় উপযোগী ও সময়-সাশ্রয়ী করতে পারবো, তত আমরা ছাত্র বা কর্মী হিসাবে দক্ষ হয়ে উঠতে পারবো।

০৫. বিজ্ঞান ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সদ্ব্যবহার করতে শেখঃ

এই যুগটা হলো বিজ্ঞান ও আধুনিক প্রযুক্তির যুগ। যুগটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির হওয়ায় সারা পৃথিবীতে জ্ঞানের ভান্ডার কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। জ্ঞানের ভান্ডার বেড়ে যাওয়ায় সময়টাও কমে আসছে প্রতিনিয়ত। সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে নিজেকে উন্নত করার জন্য রয়েছে অনেক ধরনের সফটওয়্যার।

যেমন ধরো এই পুরো আর্টিকেলটি গুগোল কিপের মাধ্যমে লিখতে আমার সময় আনেকটা সাশ্রয় হয়েছে। আবার ধরো আমার এই আর্টিকেলে একটা পয়েন্টে আমি নোটবুক এর কথা উল্লেখ করেছি  যেটা আমাদের সবার হাতে থাকা স্মার্টফোনে বিদ্যমান। যেটার মাধ্যমে আমরা যেখানে ইচ্ছা সেখানে থেকেই আমারা আমাদের প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো স্মার্টফোনের নোটবুকে লিখে রাখতে পারি আবার যেখানে যখন ইচ্ছা তথ্যগুলো স্মার্টফোন থেকে দেখে নিতে পারবো। যেটা আমাদের সময়কে অনেক সাশ্রয়ী করে।

০৬. সময় অপচয়কারী অভ্যাসকে না বলোঃ

আমাদের প্রতেকেরই কিছু না কিছু বদ অভ্যাস রয়েছে  এবং সেই বদঅভ্যাসের মাসুলও আমাদেরকেই দিতে হয়। একটা দিনের কিছুটা সময় নিজেকে সময়  দাও। একটু ভেবে দেখ এই ১ মাসে তুমি কতটুকু কাজ করেছো এবং কতটুকু সময় অপচয় করেছো। আমরা আমাদের বেশি সময়ই  ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামে স্ক্রল করেই কাটিয়ে দেয়।

৩ ধরনের মানুষের কোন ভাবেই উচিৎ না, ফ্রিল্যান্সিং চেষ্টা করার!

কিন্তু ইচ্ছা করলেই এই সময়টুকু আমরা প্রোপারভাবে কাজে লাগাতে পারি।

আমরা যদি আমাদের  সময়কে সঠিকভাবে মূলায়ন করতে পারি তাহলে আমরা আমাদের জীবনকে আরো সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হবো। এবং করোনা মহামারী তে পরিস্থিতি যাই হোক, আমরা টিকে থাকতে পারব।

জ্যোতির্ময়ী সাহা (জ্যোতি),

৭ম সেমিস্টার, কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট,

ইন্টারনেশনাল ইউনিভার্সিটি অফ বিজনেস এগ্রিকালচার এন্ড টেকনোলজি,

Email- jyotirmoyisaha14@gmail.com

Jyotirmoyi Saha Jyoti
0Shares
Asadullah

Asadullah

মোঃ আসাদুল্লাহ গালিব, পেশায় একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার এর শিক্ষার্থী আর নেশায় একজন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। কম্পিউটার বিজ্ঞান এর অন্যতম ইমার্জিং এড়িয়া মেশিন লার্নিং, ড্ডিপ লার্নিং, বায়ো-ইনফরমেটিক্স নিয়ে কাজ করে থাকেন। এর বাইরে কম্পিউটার বিজ্ঞান, ক্যারিয়ার, ফ্রিল্যান্সিং এবং টেক উদ্যোগ নিয়ে লিখে থাকেন। তিনি নিজেও অনেক গুলো টেক ব্যাবসা এর সাথে সরাসরি জড়িত। গালিব নোটস মুলত ব্যাক্তিগত ব্লগ। বিল-গেটস এর ব্যাক্তিগত ওয়েব সাইট গেটস-নোটস এর নাম অনুসারে গালিব নোটস ব্লগের নাম-করন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close