আমাদের দেশে যারা ডিপ্লমা ইঞ্জিনিয়ারিং পড়া-লেখা করছেন, কম্পিউটার বিজ্ঞান সাওব্জেক্ট এ, তাদের ফিউচার কি? কম্পিউটার সাইন্স ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ভবিশ্বত কি? পাশ করার পর কি কি কর্ম ক্ষেত্র রয়েছে আর কি কি কাজ করার সুযোগ রয়েছে, এই ব্যাপারে অনেকেই জানতে চায়। চলুন দেখে নেই, সিএসই তে ডিপ্লমা করার পর কি কি সুযোগ রয়েছে।

অন্যান্য সাবজেক্ট থেকে ডিপ্লমা পাশ করার পর অনেক গুলো সরকারী-বেসরকারি কর্মক্ষেত্র তৈরি হয়। কিন্তু সিএসই সাবজেক্ট থেকে ডিপ্লমা পাশ করার পর সেভাবে কর্মক্ষেত্র তৈরি হয় না। ডিপ্লমা পাশ করার পর, অল্প কিছু সরকারী চাকরীতে জয়েন করার সুযোগ আছে। মাত্র কয়েকটি কোম্পানিতে সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে জয়েন করা যায়। আর বেশির ভাগ উচ্চ শিক্ষায় জয়েন করা যায়।

কম্পিউটার সাইন্স এ ডিপ্লমা ইঞ্জিনিয়ারদের চাকরি পাওয়া কঠিন হলেও অসম্ভব নয় – গালিব নোটস

কম্পিউটার সাইন্স এর শিক্ষার্থিদের জন্য, কি কি সরকারী জব আছে সেটা জানার জন্য সরকারী ওয়েব সাইট তে খোজ নিতে হবে। বিভিন্ন পেপার পত্রিকা বা ক্যারিয়ার পোর্টাল এ নজর রাখতে পারেন। যেহেতু, আমি নিজেই সরকারী জব নিয়ে তেমন খোজ খবর রাখি না, তাই এ ব্যাপারে বিসাত্রিত তথ্য আমার কাছে নেই।

তবে, সরকারী চাকরি একটা লম্বা প্রসেস এবং এসব চাকরিতে সব সময় নিয়োগ হয় না। তাই সরকারি চাকরির জন্য, অনেক ধৈর্য ধরে, লম্বা সময় খোজ রাখতে হবে। সরকারি চাকরির জন্য, প্রস্তুতি নিতে হবে লম্বা সময় নিয়ে। সেই সাথে হাইলি-এম্বিশাস হতে হবে।

এবার দেখি বেসরকারি চাকরির ব্যাপারে, সফটওয়্যার ইন্ডাস্ট্রিতে, ডিপ্লমা ইঞ্জিনিয়ারিদের জন্য খুব বেশী পজিশন তৈরি হয় নি। এখন পর্যন্ত আমরা ক্যারিয়ার পোর্টাল সাইট বা অন্যান্য জব সাইট এ যখন চাকরির বিজ্ঞাপন দেখি, সব যায়গা বিএসই ডিগ্রি চাওয়া হয়ে থাকে। খুব কম সংখ্যাক চাকরি আছে, যেখানে সরাসরি ডিপ্লমা ইঞ্জিনিয়ারদের হায়ার করা হয়।

বাংলাদেশে অনেক গুলো জায়ান্ট সফটওয়্যার কোম্পানি আছে যারা কোন ডিগ্রি ছাড়াই ইঞ্জিনিয়ার হায়ার করে থাকে। শুধু স্কিল বেইজ এই কম্পানি গুলোতে চাইলে জয়েন করতে পারবেন। তবে এর জন্য হাইলি স্কিল্ড হতে হবে। ডিগ্রি ছাড়াই জয়েন করা যায় এমন কোম্পানি দেখুন এই লিংকে

ডিপ্লমা পাশ করার পর, স্টার্ট-আপ কোম্পানি গুলোতে চাকরি পাওয়া যেতে পারে, সফটওয়্য্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসাবে। বিশেষ করে, ওয়েব ডিজাইন, ডেভেলপমেন্ট, এপ ডেভেলপমেন্ট নিয়ে যে সব স্টার্ট-আপ, ছোট কোম্পানি বা টিম নিয়ে কাজ করে, তাদের সাথে কাজ করা যেতে পারে।

ডেটা সাইন্স, মেশিন লার্নিং শিখে চাকরী নিশ্চিত করুন আজই!

এই সব কোম্পানি টার্গেট করে আগালে, ভালো সম্ভাবনা থাকে। এর জন্য, ডিপ্লমা পাশ করার আগেই, একটি ক্যাটাগরি সিল্কেট করুন এবং সেটাতে দক্ষতা অর্জন করুন। পাশা-পাশি চেষ্টা করুন, এ সব কোম্পানির সাথে কানেক্ট হতে। তাহলে, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ভবিশ্বত পাস করার পর, সহজে চাকরি পাবেন।

ডিপ্লমা পাশ করার পর, সফটওয়্যার ইন্ডাস্ট্রিতে ঢুকা অনেক কঠিন। কারন, ওপেন পজিশনের সংখ্যা অনেক কম আর প্রতিযোগিতা অনেক বেশী। এর বাইরে, বেকার বিএসই ইঞ্জিনিয়ার তো আছেই। তবে, পুরো দুনিয়া নিয়ে চিন্তা করার কিছু নেই, আপনার তো লাগবে, একটা চাকরি মাত্র।

বিএসই ইন কম্পিউটার সাইন্স হচ্ছে, বেশীর ভাগ ডিপ্লমা হোল্ডারদের টার্গেট। এই সিদ্ধান্ত আপনার নিজের, তবে কোথায় বিএসই পড়বেন সেটার উপর নির্ভর করছে আপনি পরবর্তী লাইফে কোন পজিশনে থাকবেন আর লাইফে এ কত দূর যাবেন। যদিও এই বিএসই এর প্রতিষ্ঠান ই সব কিছু নয় তবে এটা বড় ভুমিকা পালন করে।

৩ ধরনের মানুষের কোন ভাবেই উচিৎ না, ফ্রিল্যান্সিং চেষ্টা করার!

বিএসই লাইফে কি কি দক্ষতা অর্জন করলেন, সেটার উপর নির্ভর করবে আপনার ফিউচার। অনেকেই আছেন,যারা ডিপ্লমা করে, বিএসই করে ভার্সিটির ফ্যাকাল্টি হয়েছেন আবার বড় একটি অংশ ডিপ্লমা করে বেকার হয়েছেন। বিএসই পড়ার সময় ঝড়ে পরার সংখ্যাও কম নয়।

যারা বিএসই ইন সিএসই পড়তে চান তাদের জন্য আইইউবিএটি ভার্সিটি হতে পারে সেরা ডেস্টিনেশন।কারন দেখুন এখানে, যে ১৫টি কারনে আইইউবিএটি সিএসই ডিপার্টমেন্ট এ ভর্তি হওয়া উচিৎ

ডিপ্লমা পড়া সঠিক সিদ্ধান্ত নাকী ভুল সেটা নির্ভর করবে আপনার উপর। যদি আপনার খুব ভালো স্কিল থাকে, যদি আপনি ভালো লিংক-আপ এর মাধ্যমে জব ম্যানেজ করতে পারেন, অথবা ডিপ্লমা পাশ করার পর, বিএসই তে ভর্তি হন, ডেফিনেটলি এটা খুবই ভালো সিদ্ধান্ত।

আর যদি ডিপ্লমা পাশ করে কিছুই না করেন, বেকার বসে থাকেন তাহলে ডিপ্লমা পড়াটা ভুল সিদ্ধান্ত হবে।

যারা এখন ডিপ্লমা পড়া লেখা করছেন, তাদের জন্য আমার পড়ামর্শঃ

প্রথমত, ফাইনাল ডিসিশন মেকিং- আপনাকে সিলেক্ট করতে হবে, ডিপ্লমা করার পর কি করতে চান। সেটা হতে পারে, সরকারী চাকরি, অথবা বেসরকারি চাকরি বা বিএসই ডিগ্রি। ধরেন, আপনি সিলেক্ট করলেন, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হতে চান, ডিপ্লমা ইন সিএসই করার পর। তাহলে করনীয় কি?

কিভাবে ইন্টার্নশিপ এর সেরা ক্যাটাগরি সিলেক্ট করবেন!

শেষ বর্ষে এসে, মেজর একটি স্কিল্স নিয়ে কাজ শুরু করা লাগবে। প্রফেশনালি কাজ শিখতে হবে। কাজের স্যাম্পল রেডি করতে হবে। কোন কোম্পানি গুলো ডিপ্লমা ইঞ্জিনিয়ার হায়ার করে সেটার খোজ খবর রাখা লাগবে। তাদের সাথে কানেক্ট হতে হবে। এভাবে চেষ্টা করে গেলে, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ভবিশ্বত, পড়া শেষে চাকরি নিয়ে সমস্যা হবে না।

0Shares
Asadullah

Asadullah

মোঃ আসাদুল্লাহ গালিব, পেশায় একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার এর শিক্ষার্থী আর নেশায় একজন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। কম্পিউটার বিজ্ঞান এর অন্যতম ইমার্জিং এড়িয়া মেশিন লার্নিং, ড্ডিপ লার্নিং, বায়ো-ইনফরমেটিক্স নিয়ে কাজ করে থাকেন। এর বাইরে কম্পিউটার বিজ্ঞান, ক্যারিয়ার, ফ্রিল্যান্সিং এবং টেক উদ্যোগ নিয়ে লিখে থাকেন। তিনি নিজেও অনেক গুলো টেক ব্যাবসা এর সাথে সরাসরি জড়িত। গালিব নোটস মুলত ব্যাক্তিগত ব্লগ। বিল-গেটস এর ব্যাক্তিগত ওয়েব সাইট গেটস-নোটস এর নাম অনুসারে গালিব নোটস ব্লগের নাম-করন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close