মাঝে মাঝে আমরা শিক্ষার্থীরা ভেঙ্গে পড়ি এটা ভেবে যে কিছুই হচ্ছে না আমার দ্বারা, কোনো সুযোগই নেই আমাদের ভালো কিছু করার জন্য। কিন্তু দুঃখের বিষয় এই যে এই ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড অনেক রেখে দিয়েছে আমাদের জীবনটাকে সাইন ফুল করে তোলার জন্য কিন্তু সেই জিনিসগুলো সম্পর্কে  আমরা বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই অবগত না। আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ সহ, হাজারও সুযোগ আছে শিক্ষার্থীদের জন্য।

এই ল্যাকেন্সির দুইটা কারন হতে পারে,

  • গাইডলাইন এর অভাব।
  • জানার কোনো আগ্রহ না থাকা।

স্টুডেন্ট লাইফের এই মূল্যবান বিষয়গুলোর মধ্যে স্কলারশিপ বিষয়টা অন্যতম। কারন, প্রায় সব স্টুডেন্টের স্বপ্ন থাকে বিদেশে ভালো একটা ইউনিভার্সিটিতে পড়াশোনা অথবা রিচার্সের সুযোগ পাওয়া। এই স্বপ্নটি হয়ত সবার ক্ষেত্রে সব সময় সত্য হয় না। এবং এইগুলোর মূল কারন হয়ে দাড়ায় “আর্থিক অক্ষমতা, আমাদের জানার ভূল, এই স্বপ্নগুলোকে বাস্তবায়ন কারার চেষ্টার আভাব।

সিজিপিএ ডাজেন্ট ম্যাটার? মিসলিডিং নাকি রিয়েলিটি!

আবার বেশিরভাগ শিক্ষার্থীর মাঝে এই ভূল ধারণাটা কাজ করে যে  স্কলারশিপ নিয়ে বিদেশে পড়াশোনা এবং রিসার্চ করাটা খুবই টাফ, যেটা হয়ত তাদের দ্বারা সম্ভব না। বেশিরভাগ শিক্ষার্থীই এই কারনগুলোর জন্যই তার হায়ার স্টাডির স্বপ্নকে শুরুতেই মেরে ফেলে।

এই ধরনের ভাবনার কারনেই অনেক স্কলারশিপ বিষয়টি নিয়ে সামনের দিকে এগোয় না। কখনো কি ভেবে দেখেছি যে এই জিনিসগুলো নিয়ে আমাদের একটু স্টাডি এবং খোঁজ নেওয়া উচিৎ! এটা ভাবা উচিৎ  যে আসলেই আমাদের জায়গা থেকে নিজেদের যোগ্যতা অনুযায়ী কোনো স্কলারশিপ আমাদের জন্য আছে কিনা অথবা চেষ্টা করলে আমরাও এই ধরনের স্কলারশিপ পেতে পারি কিনা।


“না”, কারন আমরা শুরুতেই নেগেটিভ চিন্তা মাথায় নিয়ে বসে থাকি।

আর এই ভূল ধারনার ফলেই আমরা শিক্ষার্থীরা হয়ত জানার চেষ্টা করি না আমাদের জন্য স্কলার্শিপের কত অপরচুনেস্টিস রয়েছে। যাতে করে ১০০% স্কলারশিপ নিয়ে সম্পূর্ণ বিনা খরচে আমরা বিদেশে পড়াশোনা এবং রিসার্চের সুযোগ পেতে পারি। সেটাও আবার আমাদের নিজেদের যোগ্যতাতেই।

আন্ডারগ্রাজুয়েট থিসিস – রিসার্চ এড়িয়া এবং টপিক সিলেক্ট করবেন কিভাবে?

ওয়ার্ল্ড ওয়াইড এমনও স্কলারশিপ আছে, সেটাতে আপনাকে প্লেন ফেয়ার সহ সমস্ত খরচ বহন করবে, গবেষনার সুযোগ দিবে আবার প্রোগ্রাম শেষে আপনাকে কিছু অর্থও দিবে। মানে সোনায়-সোহাগা যাকে বলে।

আর এই স্কলারশিপগুলো ভিতর অন্যতম হচ্ছে  GIP ( Global Intern Programme), আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ!

এই স্কলারশিপটা তাদের জন্য যারা জিআইএসটিতে অনন্য গবেষণার পরিবেশ এবং উপলভ্য সুযোগগুলি উপভোগ করতে চান তাদের জন্য, গ্লোবাল ইন্টার্ন প্রোগ্রাম (জিআইপি) প্রতিবছর গ্রীষ্মকালে আট-সপ্তাহের জন্য একটি গবেষণাগারে যোগদানের মাধ্যমে জিআইএসটি-তে গবেষণা করার অভিজ্ঞতার এক দুর্দান্ত সুযোগ দেয়।

ফ্রেশ সফটয়্যার ইঞ্জিনিয়ারের স্যালারি কম কেন ?

যেখানে শিক্ষার্থীরা বিশ্বের মূল্যবান ল্যাবে রিসার্চের সুযোগ এবং অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলির পাঠগ্রহণের সুযোগ পেতে পারি । মূল্যবান গবেষণার অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য জিআইএসটিতে একটি উচ্চতর ডিগ্রি অর্জন করার একটি সুবর্ন সুযোগ পেতে পারি এই স্কলারশিপের মাধ্যমে।

আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ এ আবেদনকারীর যোগ্যতাঃ

  • আবেদনকারীকে অবশ্যই আন্ডাগ্রাজুয়েট অথবা মাটার্স ডিগ্রির শিক্ষার্থী হতে হবে।
  • সিজিপিএ অবোশ্যই 3.00 অথবা  3.00 এর ঊর্দ্ধে থাকতে হবে আউট অফ 4 ।

আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ এর উপকারিতাঃ

০১. আপনি আটটি জিআইএসটি স্নাতক স্কুল থেকে একটি ল্যাব দিয়ে ইন্টার্ন করতে এবং গবেষণা পরিচালনা করতে পারেন।

০২. পোস্টার সেশনের সময় আপনি আপনার গবেষণা উপস্থাপনের মূল্যবান অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন।


০৩. আপনি কাস্টমাইজড জিআইপি বিশেষ বক্তৃতা এবং ক্লাসগুলির সাথে আপনার দৃষ্টিভঙ্গি প্রসারিত করতে পারেন

০৪. আপনি কোরিয়ান ভাষা এবং ওদের সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে পারবেন।

০৫. জিআইএসটি কোরিয়ায় আপনার রাউন্ড-ট্রিপ বিমানের অর্ধেকের জন্য আপনাকে অর্থ প্রদান করবে।

০৬. জিআইএসটি আপনাকে ইন্টার্নশিপের সময় একটি মাসিক উপবৃত্তি প্রদান করবে।

০৭. আপনার ইন্টার্নশিপের সময় আপনি ছাত্রাবাসে থাকার সুযোগ পাবেন।

০৮. আপনি নতুন বন্ধু তৈরি করতে এবং সারা বিশ্বের সহকর্মীদের জিআইপির ইন্টার্নগুলিতে দেখা করার সুযোগ পাবেন।

যে সব বিষয়ে ল্যাবোটারিতে রিচার্সের সুযোগ রয়েছেঃ

  • কম্পিউটার সাইন্স
  • স্কুল অফ ম্যাটারিয়াল  সাইন্স
  • স্কুল অফ ইনভারোনমেন্টাল সাইন্স
  • স্কুল অফ লাইফ সাইন্স
  • স্কুল অফ ফিজিক্স অ্যান্ড কেমেস্ট্রি
  • ডিপার্টমেন্ট অফ বয়োমেডিকেল সাইন্স
  • ইনিস্টিটিউট অফ ইন্ট্রিগ্রেটেড টেকনোলজি

জিআইপি স্কলারশিপের আবেদন করার আগে যেটা জানা দরকারঃ

০১. আপনি যখন আবেদন করেন, দয়া করে আপনার দুটি পছন্দসই পরীক্ষাগার বাছাই করতে হবে এবং আপনার গবেষণা পরিকল্পনা আপলোড করুন। আপনি যদি নিজের গবেষণা পরিকল্পনা আপলোড না করেন বা একটি বা দুটি পরীক্ষাগার বাছাই না করেন তবে আপনার আবেদনটি অসম্পূর্ণ হিসাবে বিবেচিত হবে এবং বিবেচনার জন্য প্রক্রিয়া করা হবে না।

সাউথ কোরিয়ান উনিভার্সিটি এর ডিরেক্টরি থেকে ল্যাব এর ওয়েব সাইট খুজে পাবেন। সেগুলা থেকে প্রফেসর এর কাজ এর ধারনা নিন। ল্যাব গুলোর মধ্য যেগুলা আপনার রিসার্চ এর সাথে সব থেকে বেশী ম্যাচ করবে সেগুলা সিলেক্ট করুন।

৩ ধরনের মানুষের কোন ভাবেই উচিৎ না, ফ্রিল্যান্সিং চেষ্টা করার!

ল্যাব সিলেক্টের সময় সেরা ল্যাব নয় বরং আপনার ইন্টারেস্ট এর সাথে ম্যাচ করে এমন ল্যাব গুলোর দিকে নজর দিন। কারন, আপনি রিসার্চ করার সুযোগ চাচ্ছেন, কোন ডিগ্রি নয়।

০২. দক্ষ প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য, দয়া করে আপনার পাসপোর্টে প্রদর্শিত ঠিকানা, ফোন নম্বর এবং পুরো নাম সরবরাহ করুন।

০৩. আবেদনের আগে দয়া করে জিআইপি যোগ্যতার প্রয়োজনীয়তা যাচাই করুন। যোগ্যতার প্রয়োজনীয়তাগুলি পূরণ করতে ব্যর্থতার ফলে আপনার অ্যাপ্লিকেশনটি প্রক্রিয়াভুক্ত হবে না।

০৪. জিআইপি প্রোগ্রামে আবেদন করে আপনি জিআইএসটি বিধি এবং কোরিয়ান আইন মেনে চলতে হবে ।  অন্যথায় আপনাকে প্রোগ্রামটি থেকে তাত্ক্ষণিকভাবে বহিষ্কার করা হবে।

আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ আবেদনের পদ্ধতিঃ

০১. আপনার কাঙ্ক্ষিত প্রোগ্রাম ও পছন্দমত স্থানের জন্য আবেদন করুন৷

০২. আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট এর তালিকা–

  • ফর্মটি পূরন করে অনলাইন এ জমা দিতে হবে।
  • সমস্ত স্নাতক এবং স্নাতকের জন্য মূল অফিসিয়াল সার্টিফিকেট ও প্রশংসাপত্র আপলোড করতে হবে।
  • সুপারিশ এর একটি চিঠি আপলোড দেওয়া লাগবে।
  • আপনার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক জারি করা ইংরেজি ভাষার দক্ষতার একটি প্রশংসাপত্র বা টোফেল, আইইএলটিএস, টোইইসি বা টিইপিএসের একটি সরকারী স্কোর রিপোর্ট জমা দিতে হবে।

মনে রাখবেন গ্লোবাল ইন্টার্ন প্রোগ্রামে ভর্তি হওয়ার পরে আপনার পোস্ট মেল দ্বারা আপলোড করা সমস্ত প্রয়োজনীয় নথিগুলি পাঠাতে বলবে। যদি আপনার নথিভুক্ত করা ডকুমেন্টগুলো, আপনি যা আপলোড করেছেন তার সাথে মেলে না, তবে আপনার ভর্তি বাতিল হয়ে যাবে।

সিএসই গ্রাজুয়েট চাকরী পায় না কেন?

আপনার আপলোড দেওয়া ডকুমেন্টর সাথে আপনার কাছে থাকা ডকুমেন্টগুলোর মিল থাকতে হবে। জমা দেওয়া দলিলগুলি ফেরত দেওয়া হবে না।

০৩. রেজাল্টের জন্য অপেক্ষা করুন —

  • নির্বাচনের ফলাফল কেবলমাত্র ই-মেইলের মাধ্যমে ঘোষণা করা হবে। আপনার ইমেল চেক করতে ভুলবেন না দয়া করে।

০৪. তালিকা–

  • স্কলারশিপ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা সাফল্যের সাথে একটি ডকুমেন্ট প্যাকেজ পাবেন: ভর্তির চিঠি, আর্থিক স্পনসরশিপ এবং ভিসার জন্য আপলাই করার আমন্ত্রণপত্র।

০৫. ভিসার জন্য আবেদন করুন–

  • ভিসার জন্য আবেদনের জন্য আপনার বাসার কাছ থেকে একটি ভিসা আবেদন ফর্ম গ্রহণ করতে হবে
  • আপনার দেশে প্রজাতন্ত্রের কোরিয়া আপনি যখন ভিসার জন্য আবেদন করেন, আপনাকে অবশ্যই আবেদনপত্রটিতে প্রেরিত সমস্ত নথি অবশ্যই সংযুক্ত করতে হবে।
  • আপনি আপনার ভিসা পাওয়ার পরে, আপনি আন্তর্জাতিক সহযোগিতার বিভাগে কর্মীদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। আমরা আপনাকে জিআইএসটিতে অধ্যয়ন এবং জীবনযাপনের জন্য ভালভাবে মানিয়ে নিতে সহায়তা করবে।

আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ লগইন অথবা আবেদনঃ

০১. লগ-ইন (আপনি নিবন্ধন করে থাকলে)–

  • আপনার অনলাইন আবেদনটি নিবন্ধ করার সময়  আপনার ইমেল অ্যাড্রেস এবং পাসওয়ার্ড দিতে হবে।

০২. রেজিষ্ট্রেশন (নতুন আবেদনের জন্য) —

  • আপনার পার্সনাল ইনফরমেশন দিতে হবে এবং সেগুলোকে অবশ্যই আপনার লিগাল ডকুমেন্টস এর ইনফরমেশনের সাথে মিল থাকতে হবে।
  • আপনাকে আপনার নিজস্ব ইমেইল অ্যাড্রেস ব্যবহার করতে হবে এবং যেটা অবশ্যই সক্রিয় থাকতে হবে।

০৩. আপনার এডুকেশন ইনফমেশন সাবমিট করুন।

০৪. আপনার ইংরেজি দক্ষতার সার্টিফিকেট নিশ্চিত করুন।

০৫.আপনার দরকার সেল্ফ ইন্ট্রোডাকশন ও পড়াশোনার পরিকল্পনা —

  • আপনি যে অনুষদে পড়তে ইচ্ছুক সেটার উপর কিছু অভিজ্ঞতা থাকা দরকার।
  • কেন  আপনি করিয়াতে পড়াশোনার জন্য যাচ্ছেন?
  • এই সুযোগের সাফল্য কি?
  • অধ্যয়ন ও অধ্যয়নের পরিকল্পনার লক্ষ্যকি?
  • অধ্যয়নের পরে  কি করবেন?
  • নিজেকে নিয়ে কিছু বলা। আপনার নিজের ইনফরমেশন।

০৬. সাবমিট করুন এবং কনফার্মেশানের জন্য অপেক্ষা করুন ।


আন্ডার গ্র্যাজুয়েট পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের জন্য আমার দেখা অন্যতম সেরা স্কলারশিপ। বিশেষ করে যারা রিসার্চার হতে চায় তাদের জন্য। সাউথ কোরিয়ান রিসার্চ দুনিয়া ব্যাপি বিখ্যাত এবং রকগনাইজড।

সব শেষে, স্কলারশিপ হয়ে গেলে মিষ্টি পাঠায় দিবেন ইমেল করে। মিষ্টি না হোক, একটা গ্রিটিংস ইমেইল দিলেও খুব ভালো লাগবে। আর ফেজবুক সহ অন্যান্য সোস্যাল মিডিয়াতে বন্ধুদের সাথে এই পোস্ট শেয়ার তো মাস্ট।

জ্যোতির্ময়ী সাহা (জ্যোতি),

৭ম সেমিস্টার,

সিএসই ডিপার্টমেন্ট!

jyotirmoyisaha14@gmail.com

Jyotirmoyi Saha Jyoti
0Shares
Asadullah

Asadullah

মোঃ আসাদুল্লাহ গালিব, পেশায় একজন কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার এর শিক্ষার্থী আর নেশায় একজন কম্পিউটার বিজ্ঞানী। কম্পিউটার বিজ্ঞান এর অন্যতম ইমার্জিং এড়িয়া মেশিন লার্নিং, ড্ডিপ লার্নিং, বায়ো-ইনফরমেটিক্স নিয়ে কাজ করে থাকেন। এর বাইরে কম্পিউটার বিজ্ঞান, ক্যারিয়ার, ফ্রিল্যান্সিং এবং টেক উদ্যোগ নিয়ে লিখে থাকেন। তিনি নিজেও অনেক গুলো টেক ব্যাবসা এর সাথে সরাসরি জড়িত। গালিব নোটস মুলত ব্যাক্তিগত ব্লগ। বিল-গেটস এর ব্যাক্তিগত ওয়েব সাইট গেটস-নোটস এর নাম অনুসারে গালিব নোটস ব্লগের নাম-করন করা হয়েছে।

7 thoughts on “আন্ডার গ্র্যাজুয়েট রিসার্চ স্কলারশিপ -বিমান খরচ সহ

    1. অনেক ধন্যবাদ জামিল, কমেন্ট করার জন্য। এই আর্টিকেল্টি ভালো লাগলে ফেজবুকে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন নাহ। আমাদের অন্যান্য আর্টিকেল পড়ার চেষ্টা করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close